শীর্ষ সংবাদ সিলেটের সংবাদ হবিগঞ্জ

গোলাপগঞ্জে সংযোগ সড়কের অভাবে সেতুর সুবিধা থেকে বঞ্চিত জনসাধারণ

Stay Home

এনামুল হক ভাদেশ্বরী,সিলেট ভিশনঃ সিলেটের গোলাপগঞ্জে ২য় কুড়া সেতু নির্মাণ কাজ শুরুর ২০ বছর পরও সংযোগ সড়কের অভাবে সেতুর সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন জনসাধারণ। প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সেতুটি সাধারণ মানুষের কোনো কাজেই আসছে না।

জানা গেছে, ১৯৯৯ সালে গোলাপগঞ্জ উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের রাজাপুর এলাকায় কুড়া নদীর ওপর দ্বিতীয় কুড়া সেতু নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। প্রায় ৮ বছর পূর্বে সেতুর কাজ শেষ হলেও, সেতুটির এক পাশের সংযোগ সড়কের অভাবে এখনো পুরোদমে চালু হয়নি। ফলে এত টাকা ব্যয়ে নির্মিত সেতুটি জনগণের কোনো কাজেই আসছে না। এ সেতুটি চালু হলে পূর্ব সিলেটের বিয়ানীবাজার, ফেঞ্চুগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার শতাধিক গ্রামের সাথে সড়ক যোগাযোগ আরো সহজ হবে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কুড়া নদীর ওপর ১১১ দশমিক ১২ মিটার দৈর্ঘ্যের ওই সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয় ১৯৯৯ সালে। নানা জটিলতা কাটিয়ে ২০১২ সালে সেতুটি নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়। এতে ব্যয় হয় প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা। সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনের তৎকালীন ও বর্তমান সংসদ সদস্য নুরুল ইসলান নাহিদ সেতুর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। প্রথম দফায় কাজ শেষে ২০০১ সালে সরকার পরিবর্তন হলে সেতুর নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় আসলে ফের সেতুর কাজ শুরু হয়। ২০১২ সালের জুন মাসে সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। কিন্তু দীর্ঘ ৮ বছর পরেও সেতুর সংযোগ সড়ক স্থাপন না হওয়ায় জনগণের কোন কাজেই আসছে না সেতুটি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সেতুর এক প্রান্ত ঢাকাদক্ষিণ-ভাদেশ্বর সড়কে গিয়ে মিলিত হলেও অপরপ্রান্তে সংযোগ সড়ক নেই। সেখানে প্রায় আধা কিলোমিটার দীর্ঘ নতুন সড়ক নির্মাণ করলে সেতুর সঙ্গে সংযোগ স্থাপিত হবে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এলাকাবাসীর অনেক দিনের দাবী ছিলো এখানে কুড়া নদীর উপর রাজাপুরে একটি সেতু নির্মাণ করা। সেতু নির্মাণের দাবী বাস্তবায়ন হলেও সংযোগ সড়কের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের।
কাউয়াটিকি গ্রামের সমাজসেবী জুবের আহমদ জানান, এতো টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মাণ হলেও এলাকার কিছু মানুষের অসহযোগিতার কারণেই সংযোগ সড়কটি না হওয়ায় সেতুর সুবিধা থেকে আজ জনগণ বঞ্চিত। সংযোগ সড়ক স্থাপন করা হলে পূর্ব সিলেটের কয়েক’শ গ্রামের সাথে গোলাপগঞ্জের যোগাযোগ সহজ হবে।
স্কুল শিক্ষক মনোয়রা বেগম জানান, যারা প্রতিদিন দূরবর্তী এলাকা থেকে জীবন-জীবিকার তাগিদে এ এলাকায় আসতে হয় সেতুটি চালু হলে যাতায়াত সহজ হবে। সিলেট সড়ক ও জনপদের বিভাগীয় অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রকল্পের শুরুতেই ভূমি অধিগ্রহণ করতে জটিলতা ছিল। এজন্য তৎকালীন সময় সড়ক সংযোগ নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে এই সংযোগ সড়ক নির্মাণের কোন প্রকল্প বা বরাদ্দ নেই।

Stay Home

এ জাতীয় আরও সংবাদ

সিলেট জেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত

sylhet vision

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে যাত্রীবাহী নৌকা ডুবিতে শিশুসহ নিহত ২

sylhet vision

প্রদীপের স্ত্রীর নামে বাড়ি গাড়ি অঢেল টাকা

sylhet vision